বন্যায় মানবতা: যার যা আছে তাই নিয়ে ত্রাণ সাহায্যে নেমেছে বিয়ানীবাজারবাসী

প্রকাশিত: ৩:৫৬ অপরাহ্ণ, জুন ২২, ২০২২

বন্যায় মানবতা: যার যা আছে তাই নিয়ে ত্রাণ সাহায্যে নেমেছে বিয়ানীবাজারবাসী

 

মিলাদ জয়নুল:

বন্যায় প্লাবিত বিয়ানীবাজারের সবক’টি এলাকা। ২ লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্ধি। উপজেলার একটি পৌরসভা ও ১০টি ইউনিয়নের সবক’টি গ্রাম পানিতে তলিয়ে আছে। বিভাগীয় শহর সিলেটের সাথে বিয়ানীবাজারের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। পৌরশহরের সাথেও বেশীরভাগ এলাকার যানচলাচল বন্ধ। এখানকার শিক্ষাপ্রতিষ্টানের বেশীরভাগ পানির নীচে। কোথাও কোলাহল নেই, নিস্তব্দ সব জায়গা। মঙ্গলবার গভীর রাত থেকে বুধবার বিকাল পর্যন্ত পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। বুধবার সকালেও বিপুল সংখ্যক মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে নতুন করে ওঠেছেন।

তবে ভয়াবহ বন্যায়ও মানবিকতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করছেন বিয়ানীবাজারের মানুষ। স্থানীয় এমপি, উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ, নতুন মেয়র, গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠান, রাজনৈতিক সংগঠন ও ব্যক্তিবর্গসহ জনপ্রতিনিধিরাও বসে নেই। প্রতিদিন তারা হাজির হচ্ছেন ত্রাণ সহায়তা কিংবা রান্না করা খাবার নিয়ে। বিশে^ও বিভিন্ন দেশে বসবাসরত প্রবাসীরাও বন্যায় সহায়তার হাত প্রসারিত করেছেন।
স্থানীয় খলিল চৌধুরী আদর্শ বিদ্যা নিকেতনের ২০২০ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা নিজেদের পকেট খরচের টাকায় ত্রাণ সহায়তা বিতরণ করছে। দু’টি ট্রাকে করে ত্রাণ নিয়ে ছুটছে তারা আশ্রয়কেন্দ্রসহ বন্যা কবলিত এলাকায়। বন্ধু মহল নামের আরেকটি সামাজিক সংগঠন গত কয়েকদিন থেকে ত্রাণ নিয়ে বানভাসিদের বাড়ি বাড়ি যাচ্ছে।

 

বিয়ানীবাজার প্রেসক্লাবের সহায়তায় জালালাবাদ প্রবাসী কল্যাণ পরিষদ-ইটালীর উদ্যোগে শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে। থানা পুলিশ রান্না করা খাবার ও ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে বন্যা কবলিত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। পৌরসভার নতুন মেয়র ফারুকুল হক ব্যক্তিগত উদ্যোগে ত্রাণ সামগ্রী পৌছে দিচ্ছেন। বৈরাগীবাজার এলাকার খশির এনএসভি যুব সংঘের উদ্যোগে ২শ’ পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে আরো দূর্গত মানুষের মাঝে ত্রাণ তুলে দেয়া হবে বলে জানান সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান সুমন।

বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম পল্লব, ভাইস চেয়ারম্যান জামাল হোসেন ও রুকসানা বেগম লিমা সরকারি ও ব্যক্তিগত উদ্যোগে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছেন। পৌর এলাকার গৌরিনাথ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আশ্রয় কেন্দ্রে খাবার সহায়তা প্রদান করছেন স্থানীয় কাউন্সিলার এহসানুল ইসলাম।

 

চারখাইয়ের একটি আশ্রয়কেন্দ্রে খাবার সহায়তা দিচ্ছেন চেয়ারম্যান হোসেন মুরাদ চৌধুরী। উপজেলার আলীনগর, চারখাই, দুবাগ, শেওলা, কুড়ারবাজার, মুড়িয়া, মাথিউরা, তিলপাড়া, মুল্লাপুর ও লাউতা ইউনিয়নের চেয়ারম্যানরাও বাড়ি-বাড়ি গিয়ে ত্রাণ পৌছে দিচ্ছেন। স্থানীয় বিএনপি ও জামায়াতে ইসলামীর পৌর কমিটিগুলো ত্রাণ বিতরণ করছে। বিয়ানীবাজার-গোলাপগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম নাহিদও বুধবার বিভিন্ন এলাকায় ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন। বিএনপি নেতা ফয়সল চৌধুরী তার ব্যক্তিগত উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত রেখেছেন।

 

পৌর এলাকার বন্ধু মহলের উদ্যোক্তা জুয়েল আহমদ জানান, প্রায় ৫শ’ পরিবারে ত্রাণ সামগ্রী প্রদান করেছি। আমরা প্রতিদিন এই কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছি।

 

বিয়ানীবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হিল্লোল রায় বলেন, আমরা রান্না করা খাবার ও ত্রাণ সামগ্রী তুলে দিয়ে সহায়তা করছি।

ভয়াবহতম বন্যায় আক্রান্ত বিয়ানীবাজারবাসী। আর এই দুর্যোগে অনেক মানুষ বন্যার্থদের সাহায্য করে মানবিকতার পরিচয় দিয়েছেন। যার যা আছে তাই নিয়ে নেমে পড়েছেন মানুষকে সাহায্য করতে। জামেয়া মাদানিয়া আঙ্গুরা মোহাম্মদপুর মাদ্রাসার পরিচালক শায়েখ জিয়া উদ্দিন ত্রাণ সহায়তা তহবিল গঠন করেছেন। এ তহবিলে বিপুল সাড়া পাওয়া গেছে।

নিজের হাত খরচ ও সংসারের টাকা বাঁচিয়ে, আত্মীয় স্বজনদের কাছ থেকে ডোনেশন এনে প্রতিদিনই উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় খাবার, ঔষদ, পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট, স্যালাইন, মোমবাতি, কয়েল, বিস্কুট বিতরণ করা হচ্ছে। ঢাকাস্থ বিয়ানীবাজার সমিতিও ত্রাণ তহবিল গঠন করে সহায়তার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

তবে এমন মানবিকতার মাঝেও কিছু অমানবিক ব্যবসায়ী ত্রাণ পণ্যের মূল্য বৃদ্ধি করেছেন। তারা শুকনো খাবার চিড়া, গুঁড়, মুড়ি, ব্রেড, বিস্কুট, মোমবাতি, কয়েল, দেয়াশলাই, কলার দাম বৃদ্ধি করে অধিক মুনাফা অর্জন করছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আর্কাইভ

June 2022
M T W T F S S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
27282930  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com