জনগেেনর ভোটে নির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরগনকে উষ্ণ অভিনন্দন ও পরাজিতদের প্রতি সহানুভুতি

প্রকাশিত: ৫:২৩ অপরাহ্ণ, জুন ১৬, ২০২২

জনগেেনর ভোটে নির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরগনকে উষ্ণ অভিনন্দন ও পরাজিতদের প্রতি সহানুভুতি
  1. 6
    এডভোটেক মো: আমান উদ্দিন:
    ‘‘বিজয়ে গৌরবÑ পরাজয়ে কোন গøানি নেই’’ ‘‘প্রতিদ্বন্দিতা থাকবে, প্রতিহিংসা কাম্যনহে’’। গনতান্তিক শাসন ব্যবসস্থায় কেহ হাসবে আবার কেহ অতিথ কার্যত্রæমের জ্যন অনুতপ্ত হবে। এটাই স্বাভাবিক। স্মরণ করিয়ে দিতে চাই যিনিই সাধারণ জনগনকে নির্বাচিত হওয়ার পর স্টেটাস কোন পযায়ে আছে, সেটা নিযে ব্যতি ব্যস্ত। জনগণকে ভুলে গেলেন। প্রতিশোধ নিবে কিন্তু সাধারণ জনগণ লালকার্ড দেখিয়ে পরবর্তী নির্বাচনে। সময় থাকতে সাধু সাবধান! প্রতারনার আশ্রয় না নিয়ে জনগণের সেবক হিসেবে কাজ করুন এবং বিশেষ গোস্টিকে লালন না করে প্রতিটি এলাকা চষে তাদের সমস্য চিহ্নিত করুন এবং নির্বাচিত কাউন্সিলর ও মুরব্বিদের সহযোগীতা নিয়ে পাশে দাড়ান। পরবর্তি নির্বাচনে মেয়র বা কাউন্সিলর হতে বেগ পেতে হবে না। সিন্ডিকেট কে না বলুন। সুষ্ট, সুন্দর ও স্বচ্ছ ভোট উপহার দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, কলাকোশলী এবং শান্তিপূণ অবস্থা বজায় রাখার জন্য সকলকে ধন্যবাদ। ‘‘বিয়ানীবাজার পৌরসভা ২০২২” চমৎকার ভাবে, স্বচ্ছতার সাথে প্রশ্নবিদ্ব না করে জনগনের সত্রিæয় অংশগ্রহনে সম্পদিত হয়েছে। নির্বাচন নিয়ে কোন প্রশ্ন উথাপনের সুযোগ নেই। মেয়র ফারুকুল হক সহ সকল কাউন্সিলরবৃন্দ সামাজিক ও একাডেমিক শিক্ষায় শিক্ষত। এককথায় বলা যায় তারা সকলেই প্রায় উচ্চ শিক্ষত। সামাজিক এবং একাডেমিক শিক্ষাকে সমন্বয় করে পৌরসভার সাধারন জনগণ সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করবেন। সেটা নিশ্চিত করার দায়িত্ব নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি গনের এবং তাদের প্রাপ্য সেবা সাধারণ জনগনের অধিকার। নির্বাচিত প্রতিনিধি দেয্য সহকারে তার সমস্য শুনে আন্তরিকতার সাথে তার পাশে থেকে কাদে কাদ মিলিয়ে সমস্য সমাধানে সহযোগীতা করবেন। কিছু দিতে না পারলেও ব্যবহার দিয়ে তাকে সন্তুষ্ট রাখুন। সব সমস্য সমাধন কিন্তু আপনার হাতে নেই। পরাজিত প্রার্থী সমর্থক গনকে বলব, কেন পুনঃ রায় নির্বাচিত হতে ব্যর্থ হলেন, কারন চিহ্নিত করুন, এবং এগুলা শুধরে আগামী নির্বাচনে নিবার্চিত হতে প্রস্ততি গ্রহন করুন। চেয়ার নির্দিস্ট আছে, থাকবে। ব্যক্তি পরিবর্তন স্থানার এটা বিধান। এখানে আহত বা হতাশ হওয়ার সুয়োগ নেই। বিগত নির্বাচিনে আনন্দ উৎসব উদ্দীপনা নিয়ে বিজয়ীর বেশে ছিলেন। এবার পরাজিত। এটাই নিয়তি! প্রবাদ আছে, ‘‘আলো বলে অন্দকার, তুই বড় কালো, অন্দকার বলে ভাই তাই তুমি আলো’’। দিন আছে বলেই রাতের এত মর্য়াদা। বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সদস্যগন ‘‘মনোনীত’’ প্রতিনিধি। যে বা যারাই আছেন, জনগনের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত হওয়ার মত শতকরা ৫ জন সদস্যের ই তো আর নির্বাচিত হওয়ার যোগ্যতা নেই। এমনকি ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার হওয়াই দূষ্কর। সুতরাং তাদের সম্মান ও নেই। ১৯৯১ সালের সংসদ সদস্যগন যে ভাবে জনগনের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত হয়েছিলেন, সে সংসদ সদস্যগনকে আজও ভুলে নাই। তাদেরকে শ্রদ্ধার সংগে জনগন স্মরণ করে থাকেন। এখানেই নির্বাচিত জন প্রতিনিধি এবং সাধারণ জনগনগনের স্বার্থকতা নিহিত। এসব জনপ্রতিনিধিদের সাথে দেখা হলেই সাধারণ জনগন সালাম ও অভিবাধন জানায় সাধারণ জনগন। কিন্তু হালের জাতীয় সংসদ সদস্যগনকে হাসির প্রাত্র হিসেবে উপহাস করে বলে, ‘অমুকের ছেলে নাকি সংসদ সদস্য? কি আশচর্য্য! বাপ দাদার নাম নাই, হাতে আছে কালো টাকা, আর বিলাশ বহুল গাড়ী। সাধারণ জনগনের বিন্দু মাত্র দুশাররুপের কারণ নেই। কেননা তারা আর এসব কালো টাকার মালিকদেরকে নির্বাচিত করেনি। তাদের সাথে কিছু টাউট বাটপার, অসৎ, চাটুকার, দুবৃর্ত্তদের দহরম-মহরম সম্পর্ক থাকে। এখানে ইজ্জতের ভালাই নেই। ইজ্জতের জিন্দেগী একদিনই ভালো। যেমনটি বিনা প্রশ্নে সুষ্ট,সুন্দুর, ও স্বচ্চভাবে ভোটের রাজাদের দ্বারা বিয়ানীবাজার পৌর সভার মেয়র ও কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচিত প্রতিনিধিগন যে সম্মান লাভ করেছেন, সে জন্য আবারও প্রাণঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা। লেখকঃ সভাপতি, সুশাসনের জন্য নাগরিক সুজন, বিয়ানীবাজার, সিলেট।
সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

আর্কাইভ

June 2022
M T W T F S S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
27282930  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com