গোলাপগঞ্জের রনির বিয়ে প্রতারণা: জাল কাবিনে ৫ বছরের সংসার

প্রকাশিত: ১১:০১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২, ২০২১

গোলাপগঞ্জের রনির বিয়ে প্রতারণা: জাল কাবিনে ৫ বছরের সংসার

 

গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি:

 

জাল কাবিন তৈরি করে এক নারীকে বিয়ে করে ৫ বছর একসঙ্গে করেছেন সংসার। তবে কোনোদিন দেননি স্ত্রীর মর্যাদা। নষ্ট করেছেন গর্ভের তিন-তিনটি সন্তান।

একপর্যায়ে প্রতিবাদ করা শুরু করেন ওই নারী। দাবি করেন স্ত্রীর মর্যাদা এবং চতুর্থ বাচ্চাকে নষ্ট করতে না দিয়ে দেখান পৃথিবীর আলো। মামলা করেন আদালতে, পৃথকভাবে অভিযোগ করেন পুলিশ প্রশাসনের কাছে। অবশেষে বিদেশে পালানোর আগমুহুর্তে শুক্রবার (১ অক্টোবর) স্বামীরূপী এ প্রতারককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত তাজ উদ্দিন রনি (৪০) সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার চন্দরবাজার এলাকার কালিঢহর গ্রামের হাজি নুরুল হকের ছেলে। তিনি নগরীর এয়ারপোর্ট থানাধীন চৌকিদেখি এলাকার আঙ্গুর মিয়া গলির একটি বাসায় প্রথম স্ত্রী ও ওই স্ত্রীর ঘরের সন্তানদের নিয়ে থাকেন। রনি একজন চালব্যবসায়ী।

পুলিশ ও ভিকটিমের বর্ণনা সূত্রে জানা গেছে, প্রথম স্ত্রী ও ৩ সন্তানের কথা গোপন করে ২০১৭ সালে নগরীর মঝুমদারী এলাকার বাসিন্দা সুলতানা আক্তার লুবনার (৩২) সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেন বিবাহিত তাজ উদ্দিন রনি। নানা প্রলোভনে তিনি গোলাপগঞ্জে নিয়ে গিয়ে বিয়ে করেন লুবনাকে। তবে সে বিয়ের কোনো কাবিন পরবর্তীতে লুবনা সংগ্রহ করতে পারেননি। বিয়ের পর জানতে পারেন, রনি বিবাহিত এবং প্রথম স্ত্রীর গর্ভে তার ৩টি সন্তানও রয়েছে। সবকিছু জানতে পেরে ভেঙে পড়েন লুবনা। কিন্তু রনিকে ভালোবাসেন তাই সবকিছু মেনে নিয়ে সঠিক কাবিননামার মাধ্যমে শরিয়ত মোতাবেক বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হতে রনিকে চাপ দিতে শুরু করেন তিনি। লূবনার পীড়াপিড়িতে ২০২০ সালে নগরীর বালুচর এলাকার এক কাজি দিয়ে ভুয়া কাবিন নামা তৈরি করে লুবনার সঙ্গে আবারও বিয়ের নাটক করেন রনি। পরবর্তীতে বিষয়টি বুঝতে পেরে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে আদালতে মামলা করেন লুবনা। পৃথক অভিযোগ দায়ের করেন সিলেট মেট্রোপলিট পুলিশ (এসএমপি) কমিশনার বরাবরে।

এদিকে, ভুয়া কাবিন ও স্ত্রীর মর্যাদা না দেয়া নিয়ে রনি ও লুবনার মনোমলিন্য লেগেই থাকতো। রনির চাপে বাধ্য হয়ে ৫ বছরে গর্ভের তিন-তিনটি সন্তান নষ্ট করেন লুবনা। তবে চতুর্থ বাচ্চা নষ্ট করতে দেননি তিনি। এ নিয়ে রনির সঙ্গে চূড়ান্ত ঝগড়া হয় এবং তাকে বেধড়ক মারধরও করেন রনি। সেসময় সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হন লুবনা।

অপরদিকে, লুবনাকে হয়রানি করতে তার বিরুদ্ধে হুমকি-ধমকি প্রদানের অভিযোগ করে মামলা দায়ের করেন রনি। সে মামলায় জামিনে আছেন লুবনা। এই অবস্থায় বিদেশ যাওয়ার পরিকল্পনা করেন রনি। খবর পেয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় চৌকিদেখির বাসা থেকে এয়ারপোর্ট থানার একদল পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। পরে শনিবার (২ অক্টোবর) আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

ভিকটিম লুবনা বলেন, বিয়ের পর থেকে আমার সঙ্গে নানা প্রতারণা করে আসছে রনি। আমার গর্ভের ৩টি বাচ্চা নষ্ট করেছে। ব্যবসার কথা বলে হাতিয়ে নিয়েছে ১৩ লাখ টাকা। আমি তার কঠোর শাস্তি চাই।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

আর্কাইভ

December 2021
M T W T F S S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com