প্রকাশনার ১৫ বছর

রেজি নং: চ/৫৭৫

২৪শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
১০ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
১৮ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

বাড়ি ফেরা হলো না মাহফুজ আহমদের

admin
প্রকাশিত
বাড়ি ফেরা হলো না মাহফুজ আহমদের

জকিগঞ্জ প্রতিনিধি:
সিলেটের জকিগঞ্জে নানার বাড়ি থেকে বাড়ি ফেরার পথে ট্রলিগাড়ির ধাক্কায় প্রাণ হারিয়েছে এক শিশুর। মাহফুজ আহমদ (৯) নামের ওই শিশু সুলতানপুর ইউনিয়নের ঘেছুয়া গ্রামের জমিল আহমেদের ছেলে।

সে স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র বলে জানা গেছে। ঘটনাটি মঙ্গলবার (২ মে) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সিলেট-জকিগঞ্জ সড়কের গঙ্গাজল গোয়াবাড়ি যাত্রী ছাউনির নিকটে ঘটে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, ঈদের ভ্রমণ শেষে ঘেছুয়া গ্রামের জমিল আহমেদের পরিবার আইওর গ্রাম থেকে টমটমযোগে বাড়ি ফেরার পথে গঙ্গাজল গোয়াবাড়ি যাত্রীছাউনির কাছেই একটি ট্রলিগাড়ি টমটমে ধাক্কা দেয়। এতে জমিল আহমেদের ছেলে মাহফুজ আহমদ ও মাসরুর আহমদ (৭) গুরুতর আহত হয়।

স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মাহফুজকে মৃত ঘোষণা করেন। আর মাসরুর আহমদকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সিলেটে প্রেরণ করা হয়।

ঘটনার পরপরই ঘাতক ট্রলি পালিয়ে গেছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে টমটম জব্দ করেছে। নিহত শিশুর লাশ পুলিশ হেফাজতে রয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জকিগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. জাহেদ হোসেন জানান, লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন প্রস্তুত করা হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে। পালিয়ে যাওয়া ট্রলির চালককে সনাক্ত করা হয়েছে। আটক করতে পুলিশ কাজ করছে।

এদিকে স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলছেন- সড়কে ট্রলির বেপরোয়া গতিতে অবাদ চলাচলের কারণে দুর্ঘটনা থামছেই না। বড় ধরনের দুর্ঘটনার পর ট্রলির বিরুদ্ধে কয়েকদিন কড়াকড়ি আরোপ করা হয়। কিন্তু কিছুদিন পরেই সড়কে ট্রলির বেপরোয়া চলাচল শুরু হয়। অন্ধকার রাতেও লাইট ছাড়াই গুরুত্বপূর্ণ সড়কে চলাচল করে ট্রলি। এ নিয়ে সাধারণ মানুষের ক্ষোভের শেষ নেই। ট্রলিগাড়িকে নিয়মের আওতায় আনতে প্রশাসনের প্রতি আহবান জানানো হয়েছে।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন।