প্রকাশনার ১৫ বছর

রেজি নং: চ/৫৭৫

১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
১১ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

জাফলংয়ে পাথরে বসে হারিয়ে যাওয়া এক শিশুর কা ন্না আর তার পরের গল্প

admin
প্রকাশিত
জাফলংয়ে পাথরে বসে হারিয়ে যাওয়া এক শিশুর কা ন্না আর তার পরের গল্প

স্টাফ রিপোর্টার:
শনিবার (১৩ এপ্রিল)। বেলা ১১টা। তপ্ট রোদে সিলেটের পর্যটন স্পট জাফলংয়ের জিরো পয়েন্টে ৫ বছরের একটি ছেলেসন্তান পাথরের উপর বসে অঝোরে কাঁদছে। কারণ- সে তার বাবা-মাকে হারিয়ে ফেলেছে।

শিশুর কান্নার বিষয়টি দৃষ্টি কাড়ে কয়েকজন পর্যটকের। তারা দ্রুত সেখানে দায়িত্বরত থানাপুলিশকে অবগত করেন। পুলিশ তৎক্ষণাৎ একাধিক হ্যান্ড মাইক দিয়ে এই ছেলের হারিয়ে যাওয়া এবং কান্নার ঘোষণা করতে থাকে।

এ মাইকিং শুনে ওই ছেলের বাবা ও পরিবারের সদস্যরা দ্রুত জিরো পয়েন্টে ছুটে এসে পুলিশের হেফাজতে তাদের হারানো সন্তানকে দেখতে পরম স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেন।

জানা যায়, হারানো ছেলের নাম রাশেদুল। তার বাবার নাম মনির হোসেন। তিনি সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার নয়াবস্তি গ্রামের বাসিন্দা।

গোয়াইনঘাট থানার এসআই মো আজিজুর রহমান জানান, গোয়াইনঘাট থানাপুলিশ সবকিছু সঠিকভাবে যাচাই করে সুস্থ অবস্থায় ওই শিশুকে তার পিতা-মাতার কাছে হস্তান্তর করেছে।

তিনি আরও বলেন- পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষ্যে সিলেট জেলার গোয়াইনঘাট থানাপুলিশ জাফলং, রাতারগুল, বিছানাকান্দি ও পান্তুমাই পর্যটন কেন্দ্রে আগত পর্যটকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণসহ অন্যান্য ডিউটি করে যাচ্ছে।

শিশু রাশেদুলের পিতা মনির হোসেন জানান, পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষ্যে জাফলং জিরো পয়েন্টে স্বপরিবারে ঘুরতে এসেছিলেন। কিন্ত অসাবধানতাবশতঃ তার ছেলে রাশেদুল হারিয়ে যায়। আল্লাহর শুকরিয়া, মানবতার পুলিশ ভাইদের সহযোগিতায় আমার সন্তানকে ফিরে পেয়েছি। না কী হতো চিন্তাই করতে পারছি না।

সংবাদটি শেয়ার করুন।