প্রকাশনার ১৫ বছর

রেজি নং: চ/৫৭৫

১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
৭ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

চলন্ত ট্রেনে গণধষর্ণের শিকার মডেল, ২ মাস পর অভিযোগ দায়ের

admin
প্রকাশিত
চলন্ত ট্রেনে গণধষর্ণের শিকার মডেল, ২ মাস পর অভিযোগ দায়ের

বিনোদন ডেস্ক :
চলন্ত ট্রেনে নেশার জিনিস খাইয়ে গণধর্ষণ করেছে এমন অভিযোগ করেছেন ভারতের মধ্যপ্রদেশের এক মডেল। শুধু তাই নয়; তিনি এদিন একই সঙ্গে অভিযোগ করেন ধষর্ণকারীরা সেই দৃশ্য ভিডিও করেন। মডেল জানান, গত মার্চের আমার সঙ্গে এই ঘটনা ঘটে। প্রায় দুই মাস পর তিনি রেল পুলিশের কাছে অভিযোগ জানালেন। তার ভষ্য, কুর্লা থেকে কল্যাণ স্টেশনের মধ্যেই এই ঘটনাটি ঘটেছে।

তিনি পুলিশের কাছে জানিয়েছেন, আদতে গোয়ালিয়ায় তার বাড়ি। তবে মুম্বাইয়ে এখন বসবাস করেন। সেখানে তিনি মডেলিং করেন। যেদিন ঘটনাটি ঘটেছে সেদিন তিনি ভোর বেলায় কুর্লা স্টেশন থেকে ট্রেনে উঠেন।

রেল পুলিশের এক কর্মকর্তা এই বিষয়ে টাইমস অব ইন্ডিয়াকে জানিয়েছেন, অভিযোগকারী জানিয়েছেন, তিনি তুলসি এক্সপ্রেসের থার্ড এসিতে একাই যাচ্ছিলেন। তিনি তার বাড়ি যাচ্ছিলেন সেদিন। তখনই তাকে মাদক দ্রব্য খাইয়ে কোচের মধ্যে গণধর্ষণ করা হয়। তিনি অভিযোগ করেছেন, সবটাই নাকি রেকর্ড করেছে তারা। কুর্লা স্টেশন ছাড়ার ৪০ মিনিটের মধ্যেই নাকি এই ঘটনাটি ঘটেছে।

হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছে, এই ঘটনার পর সেই মহিলা নাকি ঝাঁসিতে নেমে যান। তারপর প্রায় ঘটনার ৩৯ দিন পর তিনি গোয়ালিয়র রেল পুলিশের কাছে গোটা বিষয়ে অভিযোগ জানিয়েছিলেন। মুম্বাই পুলিশকে আরও ২১ দিন পর বিষয়টা জানানো হয়। বর্তমানে এই বিষয়ে থানে পুলিশ স্টেশন একটি কেস করা হয়েছে বলে থানা থেকে জানানো হয়েছে।

ইতোমধ্যেই থানা রেলওয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে তদন্ত শুরু করে দেওয়া হয়েছে। তবে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তাদের কাছে নাকি সিসিটিভি ফুটেজ নেই। ওই নির্দিষ্ট স্টেশনে নাকি নির্দিষ্ট কিছু দিনের ফুটেজ রেকর্ড করা হয় কেবল। এখন কেবল টেকনিক্যাল এক্সপার্টিজের ওপর ভিত্তি করে তদন্ত চলছে।

একই সঙ্গে পুলিশ জানিয়েছে, সেই মডেল নাকি তার টিকিট পর্যন্ত দেখাতে চাননি, কোচ নম্বর জানাননি। এমনকি মেডিক্যাল টেস্ট করাতেও অস্বীকার করেছেন। থানে রেলওয়ে পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে তাদের কাছে সেই ট্রেনের সমস্ত কোচের সব প্যাসেঞ্জারদের লিস্ট আছে। কিন্তু সেখানে তারা সেই মহিলার নাম খুঁজে পাননি।

সংবাদটি শেয়ার করুন।