প্রকাশনার ১৫ বছর

রেজি নং: চ/৫৭৫

২৫শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
১০ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
১৯শে মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

গোটাটিকরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে যুবকের পুরুষাঙ্গ কর্তন, মামলা দায়ের

admin
প্রকাশিত অক্টোবর ৩১, ২০১৯, ১১:৪৭ পূর্বাহ্ণ
গোটাটিকরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে যুবকের পুরুষাঙ্গ কর্তন, মামলা দায়ের

দক্ষিণ সুরমার গোটাটিকর এলাকায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এক যুবককে প্রাণে মারার লক্ষ্যে ধারালো ছুরি দিয়ে পুরুষাঙ্গ কেটে রক্তাক্ত জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রতিপক্ষের হামলা ও ধারালো ছুরির আঘাতে আহত ব্যক্তি ফারুক মিয়া সিলেট এম.এ.জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপতালের ৩য় তলার ১১নং ওয়ার্ডের ৪নং বেডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বর্তমানে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এ ব্যাপারে আহতের ছোট ভাই রুমেল আহমদ বাদী হয়ে গোটাটিকর পূর্বপাড়া গ্রামের গিয়াস মিয়ার ছেলে সামাদ মিয়াসহ অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জনকে আসামী করে মোগলাবাজার থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং- ১৯, তারিখ- ২৯/১০/২০১৯ইং।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ২৮ অক্টোবর বিকালে রুমেল আহমদের ভাতিজা হৃদয় গোটাটিকরস্থ বোড়ালামা মাঠে ক্রিকেট খেলতে যায়। খেলার এক পর্যায় আসামী সামাদের সাথে হৃদয়ের ঝগড়া বাধে। আহত ফারুক মিয়া ঝগড়ার কারণ জানতে চাইলে আসামী সামাদসহ আরো ৪/৫ জন ফারুকের সাথে ঝগড়ায় লিপ্ত হয়। এক পর্যায়ে সামাদ মিয়াসহ আসামীগণ ফারুককে মাঠের এক কোণায় ফেলে দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে ধারালো চাকু দিয়ে পুরুষাঙ্গ কেটে দেয়। ছুরির আঘাতে পুরুষাঙ্গের বেশি অংশ কেটে মারাত্মক রক্তাক্ত জখম করা হয়। ভাতিজা হৃদয় চাচাকে বাঁচাতে গেলে তাকেও মারধর করে আহত করে। ফারুকের পুরুষাঙ্গ হতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে সে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে।

এ সময় তাদের চিৎকারে আশপাশে লোকজন এগিয়ে আসলে আসামীগণ ফারুক ও হৃদয়কে হুমকী দিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। খবর পেয়ে বাদী রুমেল আহমদ ঘটানাস্থলে গিয়ে ভাইকে উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। বর্তমান আহত ফারুক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ ব্যাপারে মোগলাবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ আক্তার হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, থানায় মামলা হয়েছে। আসামীদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন।