প্রকাশনার ১৫ বছর

রেজি নং: চ/৫৭৫

২০শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
৫ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
১৪ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

ক্ষমতা থাকলে ডিএনএ পরীক্ষা করে কমিটি দিতাম: মেয়র নাছির

admin
প্রকাশিত ডিসেম্বর ১৯, ২০১৯, ০৬:০২ পূর্বাহ্ণ
ক্ষমতা থাকলে ডিএনএ পরীক্ষা করে কমিটি দিতাম: মেয়র নাছির

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, ‘ক্ষমতা থাকলে’ মাদকাসক্ত, সন্ত্রাসী ও অনৈতিক কাজে জড়িতদের দলের কমিটিতে আসা আটকাতে ‘ডিএনএ’ পরীক্ষার ব্যবস্থা করতাম।

বুধবার নগরীর আগ্রাবাদের সিডিএ আবাসিক এলাকায় চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ (সিএমপি) উপ-কমিশনারের (পশ্চিম) নতুন কার্যালয়ের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এমন মন্তব্য করেন। এ সময় তিনি নেতাদের ঘিরে অপরাধীদের ছবি তোলা নিয়েও বিরক্ত প্রকাশ করেন।

আ জ ম নাছির বলেন, নিষ্ঠুর বাস্তবতা হচ্ছে আমাদের রাজনীতির নামে অনেক ধরনের অনৈতিক কর্মকাণ্ড হচ্ছে। অনেকেই দলের নাম ভাঙিয়ে বা নেতার নাম ব্যবহার করে নিজের অপরাধকে আড়াল করার চেষ্টা করে। যেখানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সন্ত্রাস ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণ করছেন, সেখানে আমাদের সুযোগ নেই কাউকে সুযোগ করে দেয়ার।

নগর আওয়ামী লীগের সম্পাদক নাছির বলেন, স্বাধীনভাবে যদি আমার মত করে সিদ্ধান্ত দিতে পারতাম, প্রয়োজনে আমি ডিএনএ টেস্ট করে সে মাদকাসক্ত কিনা, সে কোনো ধরনের অনৈতিক-অসামাজিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে সম্পৃক্ত কিনা, সে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে প্রত্যক্ষভাবে… আমি টেস্ট করে করে নিশ্চিত হয়ে তারপর কমিটিতে স্থান দিতাম।

‘কিন্তু বাস্তবতা হল যে, এককভাবে তো সে সুযোগ আমার এ পর্যন্ত নেই এখানে। বিভিন্ন কারণে অনেকে…। এখন আমি বাদ দিলে আরেকজন তাকে আশ্রয় দিচ্ছে। আরেকজন তার জন্য মায়া কান্না করছে। এই হলো বাস্তবতা’-যোগ করেন মেয়র।

মেয়র নাছির বলেন, বাংলাদেশের সর্বশেষ যে পরিসংখ্যান, তাতে ৭০ লাখ মাদকসেবীর তথ্য পাওয়া যায়। এটা একটি সমাজের জন্য বা স্বাধীন দেশের জন্য কোনো সুসংবাদ নয়। একটা অ্যালার্মিং বিষয় এটা।

মাদকাসক্ত কাউকে ছাড় দেয়া হবে বলে দলীয় নেতাকর্মীদের সকর্ত করে দিয়ে তিনি বলেন, কারো সঙ্গে ছবি তুলেও কেউ পার পাওয়ার সুযোগ নেই। আমরা অনেক জায়গায় যাই, আমরা জিম্মি হয়ে পড়ি। এই ছবিগুলো কারা তুলছেন আমরা জানি না। সামাজিক অনুষ্ঠানে যাই, পাশে দাঁড়িয়ে যায়। আবার একজন একজনকে ইশারা করে। একটু দূর থেকে ছবি তোলে পেছনে দাঁড়িয়ে। কে তার কপালে তো আর লিখা নাই। এই শহরের সবাইকে যে আমি চিনব, তার সম্পর্কে জানব তাতো কারো পক্ষেই সম্ভব নয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন।