প্রকাশনার ১৫ বছর

রেজি নং: চ/৫৭৫

২৭শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
১৪ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
১৭ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

কুলাউড়ায় ছাত্রীকে ধর্ষণের পর ৫ হাজার টাকার লোভ দেখালো দুই লম্পট

admin
প্রকাশিত
কুলাউড়ায় ছাত্রীকে ধর্ষণের পর ৫ হাজার টাকার লোভ দেখালো দুই লম্পট

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুলাউড়া ::  কুলাউড়ায় স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয়রা জানায়, আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা বখাটে দুই যুবক জোরপূর্বক তুলে গভীর জঙ্গলে নিয়ে ভিকটিমকে ধর্ষণ করেছে। এঘটনায় সানু মিয়া (৩৫) নামক এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুর ২টার দিকে উপজেলার ভাটেরা ইউনিয়নের সরকারী রাবার বাগানে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে ধর্ষণের পর ছাত্রীকে পাঁচ হাজার টাকার লোভ দেখায় ওই দুই লম্পট।

স্থানীয় সূত্র থেকে জানা যায়, উপজেলার ভাটেরা ইউনিয়নের একটি বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী বিদ্যালয় ছুটির পর বাড়ি ফেরার পথে দক্ষিণভাগ গ্রামের সোনা মিয়া মহরির ছেলে আনিছ মিয়া (৩২) ও ভবানীপুর গ্রামের সোনা মিয়া ওরফে মেলেটারির ছেলে সানু মিয়া (৩৫) মিলে জোরপূর্বক ছাত্রীকে তুলে রাবার বাগানের নির্জন স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে।

এসময় ওই স্কুল ছাত্রীর আর্ত-চিৎকারে আশপাশের স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে ধর্ষণকারী ওই দুই বখাটে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা ধর্ষণের শিকার ওই স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে।

ধর্ষণের শিকার ওই স্কুল ছাত্রী জানায়, তাকে মুখ চেপে ধরে আনিছ ও তার সহযোগি মিলে নির্জন স্থানে নিয়ে যায় এবং ধর্ষণ করে। ঘটনা কাউকে না জানাতে আমাকে ৫ হাজার টাকা দেওয়ার কথা বলে তারা।

খবর পয়ে ভাটেরা পুলিশ ক্যাম্পের সদস্যরা অভিযান চালিয়ে সানু মিয়াকে তার বাড়ি থেকে আটক করে।

ভাটেরা স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ সিপার উদ্দিন আহমদ বলেন, ভিকটিমকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হবে।

কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ ইয়ারদৌস হাসান বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। ইতোমধ্যে একজন সন্দেহভাজনকে আটক করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন।